সংবাদের বৈশিষ্ট্য। Characteristics of News । cajbd.com

মাহমুদুল হাসান সৌরভ

সংবাদের বৈশিষ্ট্য Characteristics of News

আমরা জানি প্রত্যেকটা সংবাদই হলো কোনো না কোনো ঘটনার প্রতিবেদন মাত্র যা মানুষকে নাড়া দেয়। আর কোনো ঘটনার সংবাদ হবার পেছনে যেমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র থাকে মূল্যায়নের নিরিখে তেমনিই একটি সংবাদের কিছু বৈশিষ্ট্য থাকে যা সংবাদকে আরো প্রাণবন্ত এবং ঘটনা জানার জন্য মানুষকেও আগ্রহী করে তোলে।

সংবাদ কেমন হবে তা মূলত নির্ভর করে কিছু বৈশিষ্ট্যের ওপর। এবার দেখে নেয়া যাক সেসব বৈশিষ্ট্যগুলো।

(১) সময়োচিতঃ

সংবাদকে তুলনা করা হয় পচনশীল মাছের সাথে। যে ঘটনা যত আগে সংবাদ আকারে প্রকাশ করা হবে, যত দ্রুত প্রকাশ করা হবে সেই সংবাদ হবে তত বেশি গ্রহণযোগ্য। আজকের ঘটে যাওয়া কোনো ঘটনা আজকেই প্রকাশ করতে হবে। বিভিন্ন সময়োপযোগী বিষয় নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হবে, যদি কখনো কোনো ঘটনায় পটভূমির প্রয়োজন পড়ে তাহলে সংবাদের নিচের অংশে সেই পটভূমি রাখা যায় কিন্তু ঘটনার সর্বশেষ অবস্থা সংবাদের প্রথমেই থাকবে। সংবাদ হবে সময়ের সাথে এগিয়ে।

(২) নৈকট্যঃ

সংবাদে সবসময় নৈকট্যতা প্রাধান্য পাবে। এই নৈকট্যতা হলো স্থানভিত্তিক বা আঞ্চলিক। কোনো একটি বিশেষ অঞ্চল নিয়ে করা সংবাদে সেই অঞ্চলের সাথে জরিত মানুষজন বেশি আকৃষ্ট হবে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, বাংলাদেশের পত্রিকায় প্রথম পাতায় যদি আন্তর্জাতিক খবর ছাপা হয় তাহলে সেই পত্রিকায় মানুষের আগ্রহ থাকবে কম। একই সাথে অন্য দেশে এবং বাংলাদেশে চাঞ্চল্যকর দুটো ঘটনা ঘটলে বাংলাদেশের পত্রিকায় বা গণমাধ্যমে দেশের খবরটিই আগে প্রকাশ করা হয়। আর এতে মূল ভূমিকা পালন করে নৈকট্য।

(৩) প্রভাবঃ

সংবাদ মানুষকে প্রভাবিত করে। গণমাধ্যমের কাজই হলো মানুষকে বিভিন্ন বিষয় সম্বন্ধে জানান দিয়ে প্রভাবিত করা। আর বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত ইত্যাদি জানান দেয়া যায় সংবাদের মাধ্যমে। গণমাধ্যমের আলোচ্যসূচী নির্ধারণের মাধ্যমেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় কোন বিষয়ের ওপর আলোকপাত করলে তা জনগণকে প্রভাবিত করবে এবং জনগণ সেই অনুযায়ী ভাবতে শুরু করবে।

(৪) সত্যনিষ্ঠঃ

সংবাদ সবসময়ই হবে সত্য ও নির্ভুল তথ্যের বর্ণনা। কোনো ঘটনা কীভাবে ঘটেছে সেই তথ্য পুরোপুরি তুলে ধরা এবং কোনো ঘটনার সাথে জরিত ব্যক্তিবর্গ বা কর্তৃপক্ষের নাম নির্ভুলভাবে তুলে ধরা। যে কোনো ঘটনা সত্য এবং নির্ভুলভাবে তুলে ধরলে সেই সংবাদ গ্রহণযোগ্যতা এবং প্রাধান্য দুই ই পায়।

(৫) ভারসাম্যপূর্ণঃ

সংবাদ সবসময়ই হবে ভারসাম্যপূর্ণ। অর্থাৎ প্রত্যেক পক্ষের মতামত এখানে সমানভাবে প্রাধান্য পাবে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, নির্বাচনের সময়ে কোনো প্রতিবেদন করা হলে সেই প্রতিবেদনে নির্বাচনে অংশ নেয়া দুই পক্ষেরই বক্তব্য বা মতামত সমানভাবে তুলে ধরতে হবে। নাহয় সেই প্রতিবেদন বা সংবাদ হবে অসম্পূর্ণ।

(৬) সহজ-সরলঃ

সংবাদের ভাষা হবে সহজ সরল এবং সংবাদ হবে সংক্ষিপ্ত। মনে রাখা উচিত যে গণমাধ্যমকে সব শ্রেণী পেশার মানুষই অনুসরণ করে। তাই সংবাদ যাতে সকলের বোধগম্য হয় সেইদিকে প্রতিবেদককে খেয়াল রাখতে হয়। আর অতিরিক্ত বিস্তৃত সংবাদও অনেকে পছন্দ করেন না। যত সংক্ষিপ্ত আকারে এবং সহজ ভাষায় যদি কোনো ঘটনা তুলে ধরা যায় তাহলে সেই সংবাদ হয় প্রাণবন্ত।

(৭) দ্বন্দ্ব-সংঘাতঃ

যে কোনো দ্বন্দ্ব-সংঘাতের ঘটনা সংবাদ হিসেবে স্থান পায়। পত্রিকা খুললেই বা সম্প্রচার মাধ্যমগুলোর দিকে তাকালেই দেখা যায় যে প্রতিদিনই কোনো না কোনো দ্বন্দ্বের সংবাদ প্রচারিত হচ্ছে। মূলত অনেকেই আছেন যারা কিনা সারাবিশ্বে চলমান বিভিন্ন উদ্বেগজনক পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চান। আর সংবাদে দ্বন্দ্ব-সংঘাত এর উপস্থিতি সেই তথ্যপিপাসা মেটাতেই সাহায্য করে।

(৮) বস্তুনিষ্ঠঃ

সংবাদ হবে বস্তুনিষ্ঠ, অর্থাৎ কোনো ঘটনা যেমন ঘটেছে ঠিক তেমনই বলা। কোনো পক্ষপাতিত্ব অবলম্বন থেকে বিরত থাকা এবং সকল অনৈতিকতার উর্দ্ধে থেকে ঘটনার বিবরণ প্রদান করা। বস্তুনিষ্ঠতা বলতে বোঝায় কোনো নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা দলের আওতার বাইরে থেকে এবং কোনো নিরীহ নিষ্কলুষের নামে সংবাদে মিথ্যে অপবাদ না দেয়া। কোনো রকম দুর্নীতি এবং অপচেষ্টার সহায়তা না সদা সত্য সংবাদ প্রকাশ করাই হলো বস্তুনিষ্ঠতা। জনগণকে সদা সত্য জানানোর যে গুরুদায়িত্ব গণমাধ্যমের রয়েছে তা পূরণ করা হয় সংবাদে বস্তুনিষ্ঠতার চর্চার দ্বারা।

সংবাদ হলো কোনো ঘটনার ওপর প্রতিবেদন যা কিনা সরাসরি বা পরোক্ষভাবে মানুষকে আকৃষ্ট বা প্রভাবিত করে। আর সংবাদে বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের উপস্থিতি সেই সংবাদকে প্রভাব বিস্তার বা আকর্ষণ সৃষ্টি বা আগ্রহের উদ্দীপনে সহায়তা করতে আমূল ভূমিকা পালন করে।

লেখক : গ্রেজুয়েট

২০ তম ব্যাচ

যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*