নির্বাচনী রিপোর্টিং প্রস্তুতি ও সতর্কতা

মো: সাইফুল ইসলাম:

 

নির্বাচনী রিপোর্টিং প্রস্তুতি ও সতর্কতা

নির্বাচনী রিপোর্টিং

নির্বাচনী রিপোর্টিং প্রস্তুতি 

 
১. ভোটার সম্পর্কে জানা

নির্বাচনী সংবাদ সংগ্রহে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে ভোটার বা দেশের নাগরিক গণ। ভোটারদের সম্পর্কে জানা রিপোর্টারের অবশ্য কর্তব্য। রিপোর্টার ভোটারদের সাথে কথা বলে ভোট চলাকালীন সময়ের অবস্থা সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করবেন। তাই প্রথমেই ভোটার সম্পর্কে রিপোর্টার কে জানতে হবে।

২. নির্বাচনের আইনকানুন সম্পর্কে জানা

নির্বাচনের সময়ে পুলিশ ও প্রশাসনের আইন কানুন এবং বিভিন্ন নীতি সম্পর্কে রিপোর্টারকে জানতে হবে। যে কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পদক্ষেপ কেমন হবে সে সম্পর্কে সাংবাদিক আগেই জেনে রাখবেন।

৩. অর্থের প্রবাহ সম্পর্কে জানা

নির্বাচনী সংবাদ তৈরির সময় কোথা থেকে অর্থসংস্থান করা হচ্ছে, রাজনৈতিক দলগুলো কোথা থেকে আর্থিক সহযোগীতা পাচ্ছে ,তা সম্পর্কে রিপোর্টার জেনে রাখবেন।

৪. ভোটার রেজিস্টেশন পদ্ধতি সম্পর্কে জানা

নির্বাচনে ভোটার রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতি কেমন ছিল তা রিপোর্টারককে জানতে হবে। রিপোর্টার এ রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতির সাথে আন্তর্জাতিক রেজিস্ট্রেশন মানের তুলনা করবেন। জাতি, ধর্ম,বর্ণ ভেদে ভোটার রেজিস্ট্রেশনে কোন পার্থক্য থাকলে তা রিপোর্টার সংবাদ লেখার সময় উল্লেখ করবেন।

Know More….অনুসন্ধনী প্রতিবেদন  তৈরির ধাপ

৫. তথ্য যাচাই করা

নির্বাচনের বিভিন্ন সময়ে প্রার্থীরা কোথায় কি বলছেন তার রেকর্ড প্রতিবেদক রাখবেন এবং সকল পরিসংখ্যান চেক করবেন।

৬. ব্যালট পেপার সম্পর্কে জানা

ব্যালট পেপারে প্রার্থীদের নাম নির্বাচনী প্রতীক কিরূপ দেওয়া আছে সে সব সম্পর্কে প্রতিবেদক জ্ঞান রাখবেন। একজন নিরক্ষর লোক নির্বাচনী প্রতীক দেখে ভোট দিতে পারছেন কিনা তা সাংবাদিক যাচাই করবেন।

৭. নির্বাচনের দিন বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন

নির্বাচনের দিন রিপোর্টার বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করবেন। রিপোর্টারর ভোট দেওয়ার জন্য আসা অপেক্ষমাণ ভোটার এবং ভোট দিয়ে আসা ব্যক্তিদের কাছ থেকে ভোট কেন্দ্রের অবস্থা সম্পর্কে তাদের মতামত জানতে চায়বেন।

৮. দ্রুত কাজ শুরু করা

নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর জন্য অপেক্ষা না করে রিপোর্টার রিপোর্ট তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করবেন। এ জন্য রিপোর্টার আরো আগ থেকেই কাজ শুরু করবেন এবং বিভিন্ন বিষয়ে জরিপ চালিয়ে তথ্য জেনে নিবেন।

নির্বাচনী রিপোর্টিং সতর্কতা

 
 

১. পরিস্থিতি সম্পর্কে সজাগ থাকা
২. ব্যক্তিগত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিরাপদ রাখা 
৩. ব্যক্তিগত জীবন আর পেশাগত জীবনের মধ্যে দূরত্ব রাখা
৪. প্রেস কার্ড সাথে রাখা
৫. যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম সাবধানে রাখা
৬. চাপ সহ্য করার ক্ষমতা রাখা
৭. পুলিশ ও রাজনৈতিক দলের সাথে অধিক ঘনিষ্ঠ না হওয়া
৮. জরুরী যোগাযোগ
৯. রিলেক্স থাকা
১০. একাকী কোথাও না যাওয়া

 
বি:দ্র : বিস্তারিত পরবর্তীতে আলোচনা করা হবে।


লেখক : শিক্ষার্থী
৪র্থ বর্ষ( ২১ তম ব্যাচ )
যোগাযোগওসাংবাদিকতা বিভাগ
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*