Home > Masters > জনগণের শ্রেণিবিভাগ | জনসংযোগ |Classification of Publics in PR

জনগণের শ্রেণিবিভাগ | জনসংযোগ |Classification of Publics in PR

জনগণের শ্রেণিবিভাগ

Classification of Publics :

স্বার্থের দ্বন্দ্ব এবং একশ্রেণীর পাবলিকের অন্য শ্রেণীতে মিশে যাওয়ার কারণে পাবলিককে ভাগ করা কঠিন। অধিকাংশ জনসংযোগ বিশেষজ্ঞদের মতে প্রতিষ্ঠান এবং জনগণের সাথে সম্পর্কের ভিত্তিতে পাবলিককে দুটি বড় দলে বিভক্ত করা যায়। ভাগগুলো হলো-

১) Internal Public (আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠী)
২) External Public (বহিঃস্থ জনগোষ্ঠী)

Internal Public :

একটি প্রতিষ্ঠানের আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠী (Internal Public) হচ্ছে সে সব লোকজন যারা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত এবং যাদের সঙ্গে প্রতিদিনের নিয়মিত কাজ চালানোর জন্য প্রতিষ্ঠানকে যোগাযোগ করতে হয়। আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠীর সাহায্য ও সহযোগিতা ছাড়া প্রতিষ্ঠানের দৈনন্দিন কাজ চালানো অসম্ভব। এছাড়া এই আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠী প্রতিষ্ঠানের বাইরের লোকজনের কাছে প্রতিষ্ঠানের ‘ভাবমূর্তি’ তুলে ধরার কাজটিও অনেকাংশে করে।

Scott M. Cuttip ও Allen H. Center তাঁদের ‘Effective Public Relations’ বইতে আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠীর সংজ্ঞা দিতে গিয়ে বলেছেন –

“The term internal public as used here means the people working in an organisation – the governors and governed. They are the managers, employees, members, teachers and associates of organisations variously engaged in in business, government, education or social welfare.”

অর্থাৎ আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠী বলতে কোন সংস্থায় কর্মরত লোকজনকে বোঝানো হয়েছে। কর্মকর্তা বা কর্মচারী কিংবা ব্যবস্থাপক থেকে অধঃস্থ সবাই এই জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত।

Dough Newsom ও Alan Scott তাঁদের “This is PR” বইতে আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠী সম্পর্কে বলেছেন -”

Internal publics are those to which an institution most closely relates one that share the institutional identity such as management, employees supporters and other who may be identified only in relations to specific institution.

অর্থাৎ অভন্তরীণ জনগোষ্ঠী তারাই যাদের সঙ্গে সংস্থার সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকে তাদের রয়েছে প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয় যেমন ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ সমর্থক এবং অন্যান্যরা যারা কেবল নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্কিত।

John E. Marsfon তাঁর The nature of Public Relations বইতে বলেছেন –

” Internal publics are the people who are already connected with the organisation and with whom the organisation normally communicates in the ordinary routine of work.”

অর্থাৎ আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠী তারাই যারা ইতোমধ্যে কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে এবং যাদের সঙ্গে প্রতিষ্ঠানের স্বাভাবিক কর্মসূচী অনুযায়ী যোগাযোগ হয়।

উপরোক্ত সংজ্ঞাগুলোর আলোকে বলা যায়, কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান প্রতিদিনই যাদের সাথে যোগাযোগ করছে তারাই আভ্যন্তরীণ জনগোষ্ঠী।

শিল্প প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে এরা হলো কর্মকর্তা, কর্মচারী, ডিলার, স্টক হোল্ডার, ক্রেতা ও অন্যান্যরা। সরকারি ক্ষেত্রে এরা হচ্ছে -মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দ, সচিবালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে শিক্ষকবৃন্দ, ছাত্র-ছাত্রী, প্রশাসনিক কর্মকর্তাবৃন্দ এবং অন্যান্য কর্মচারীগণ।

External Public :

বহিঃস্থ জনগোষ্ঠী(External Public) কোনও প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব সম্পত্তি নয়, এরা সাধারণত প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিতও থাকে না, তারপরেও বহিঃস্থ জনগোষ্ঠী Target audience এ পরিণত হতে পারে এবং যোগাযোগের বিষয়েও পরিণত হতে পারে।

বহিঃস্থ জনগোষ্ঠী সম্পর্কে Daugh Newsam ও Alan Scott তাঁদের “This is PR” বইতে বলেছেন –

“External publics are those outsiders of an institution that have some relationship to the institution and can have widespread impact such as a government regulatory agency “.

অর্থাৎ বহিঃস্থ জনগোষ্ঠী হল প্রতিষ্ঠানের বাইরের লোক যাদের সঙ্গে প্রতিষ্ঠানের কোনও না কোনও সম্পর্ক রয়েছে। এরা প্রতিষ্ঠানের ওপর বড় ধরনের প্রভাব বিস্তার করতে পারে। যেমনঃ সরকারের রেগুলেটরি এজেন্সি সমূহ।

John E. Marsfon তাঁর The nature of public relations বইতে বহিঃস্থ জনগোষ্ঠী সম্পর্কে বলেছেন –

“External publics on the other hand are composed of people who are not necessarily closely connected with a particular organisation”.

অর্থাৎ বহিঃস্থ জনগোষ্ঠীর সঙ্গে কোনও নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকতেই হবে এমন নয়।

যেমনঃ গণমাধ্যমের কর্মীবৃন্দ, সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ ও ধর্মীয় সম্প্রদায় বা নেতৃবৃন্দ – এই বহিঃস্থ জনগোষ্ঠীর সঙ্গে কোনও শিল্প প্রতিষ্ঠানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বা স্বার্থ জড়িত না ও থাকতে পারে।
সরকারের ক্ষেত্রে বহিঃস্থ জনগোষ্ঠী হলো- ডাক্তার, প্রকৌশলী, কৃষকসহ আপামর জনসাধারণ। সরকার তাদের সুবিধা-অসুবিধা স্বার্থ দেখে বটে কিন্তু তাদের সঙ্গে সরকারের কোনও সম্পর্ক নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Share Now