কপি সংক্ষেপণের কৌশল । কপি সংক্ষেপণের টিবিসি

মাস্তরা মীম/স্বস্তিকা সেন গুপ্ত:

 

কপি সংক্ষেপণের কৌশল

 
কপি সংক্ষেপণের কৌশল
1.Trimming (পরিপাটি করা)

2.Boiling (স্ফুটন করা)
3. Cutting (কাটছাঁট করা)

 
 
 
 
কপি সংক্ষেপণের কৌশল
1.Trimming (পরিপাটি করা)

 সাধারণত সংবাদকাহিনী কে আঁটসাট করার ক্ষেত্রে এই পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়। এ পদ্ধতি তে অতিরিক্ত শব্দ ও এর আলাদা বাক্যগুলোকে এক শব্দের পরিপূর্ণ শব্দে প্রতিস্থাপন করা হয়। কপিতে স্পষ্টতা ব্যাহত করতে পারে এমন শব্দ ছেটে ফেলতে হবে বেশির ভাগ অপ্রয়োজনীয় শব্দগুলো হয় Adjective বা বিশেষণ। কারণ ছাড়া Passive voice ব্যবহার না করা ভাল। Active voice এ বললে তা ভাল শোনায়। বাক্যে কোন শব্দ দুইবার ব্যবহৃত হচ্ছে কিনা দেখতে হবে। ব্যবহৃত হলে একটি বাদ দিতে হবে। যেমন – ‘বেহাল দশা’, এখানে শব্দ দুইটি একি অর্থ বহন করে। তাই যেকোন একটি ব্যবহৃত হবে।

2.Boiling (স্ফুটন করা)

Boiling পদ্ধতি তে একি রকম বাক্যাংশ কে পরিবর্তিত করে উৎকৃষ্ট অংশে পরিণত করা হয়।  এছাড়া একটি গল্পের বিভিন্ন দিক বা Angle থাকে। এক্ষেত্রে অপ্রয়োজনীয় অংশ এঙ্গেল গুলো বাদ দিয়ে প্রয়োজনীয় অংশগুলো আরো বিস্তারিত ভাবে তুলে ধরতে হয়। যেমন – জাফর ইকবালের উপর হামলার ঘটনাটির বিভিন্ন এঙ্গেল থেকে সংবাদ হতে পারে। এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় দিকগুলো বিস্তারিত ভাবে তুলে ধরে বাকি দিক গুলো বাদ দেওয়া যায় ।

3. Cutting (কাটছাঁট করা)

একটি সংবাদ কাহিনীর দৈর্ঘ্য কাটছাঁট করার ক্ষেত্রে Cutting পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। কিন্তু এর পরও গল্পের মূলভাব অভিন্ন রখতে হয়। উল্টো পিরামিড কাঠামোতে সংবাদ লেখা হলে প্রয়োজনে সহ সম্পাদক অনায়াসে শেষের প্যারা গুলো বাদ দিতে পারেন। এতে সংবাদের তেমন কোন ক্ষতি হয় না।
 


 
লেখক : শিক্ষার্থী
৪র্থ বর্ষ
যোগাযোগওসাংবাদিকতা বিভাগ
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
 

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*